comment 0

ফায়ারফক্স স্টুডেন্ট অ্যাম্বাসেডর : কী, কেন এবং কীভাবে!

আসসালামু-অলাইকুম। পোস্টের শিরোনাম দেখে এতক্ষণে নিশ্চয়ই অনুমান করে নিয়েছেন লেখাটি ফায়ারফক্স স্টুডেন্ট অ্যাম্বাসেডর প্রোগ্রাম সম্পর্কে। হ্যাঁ, এই পোস্টে আমরা ফায়ারফক্স স্টুডেন্ট অ্যাম্বাসেডর প্রোগ্রাম সহ আরো কিছু বিষয়ে সংক্ষেপে জানব। যে সব বিষয় সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা থাকছে এই পোস্টে:

  • ফায়ারফক্স স্টুডেন্ট অ্যাম্বাসেডর প্রোগ্রাম কী?
  • মজিলা কী এবং এর উদ্দেশ্য কী?
  • ফায়ারফক্স স্টুডেন্ট অ্যাম্বাসেডররা কী করেন?
  • আপনি এই প্রোগ্রামে কেন যুক্ত হবেন?
  • কীভাবে যুক্ত হবেন?

 

আচ্ছা, তাহলে শুরু করা যাক!

ফায়ারফক্স স্টুডেন্ট অ্যাম্বাসেডর প্রোগ্রাম:

FSA

ফায়ারফক্স স্টুডেন্ট অ্যাম্বাসেডর(সংক্ষেপে FSA) হলেন সেই সকল শিক্ষার্থীরা, যারা মজিলা, ওপেন ওয়েব, ফায়ারফক্স, ফায়ারফক্স ওস সহ মজিলার বিভিন্ন সেবার সুবিধা সমূহ নিয়ে উৎসাহী। এ সকল উৎসাহী শিক্ষার্থীদের নিয়েই মজিলার এই ফায়ারফক্স স্টুডেন্ট অ্যাম্বাসেডর প্রোগ্রাম।

মজিলা এবং এর উদ্দেশ্য:

মজিলা হল একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান, যেটা ওয়েব কে মুক্ত রাখতে ও আমাদের মত ব্যাবহারকারীদের স্বার্থ সংরক্ষণে নানা উপায়ে কাজ করে যাচ্ছে। এটি কোন ব্যাবসায়ীক প্রতিষ্ঠান নয়, একটি সংগঠন। আমার এবং আপনার মত সাধারণ মানুষের সংগঠন। যা আমাদের মত সাধারণ মানুষদের অধিকারের জন্য, বড় বড় ব্যাবসায়ীক প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে লড়ে যাচ্ছে।

মজিলা ও ফায়রফক্স সম্পর্ক আরেকটু গভীর ভাবে জানতে এই ভিডিও দুটি দেখতে পারেন:

মজিলার মিশন সম্পর্কে জানতে চলে যান এই লিংকে

meaning of open
মজিলা ওপেন বলতে যা বোঝায়

স্টুডেন্ট অ্যাম্বাসেডররা যে সকল কাজে সম্পৃক্ত থাকেন:

  • ফায়ারফক্স ওয়েব ব্রাউজারকে প্রোমোট কারা।
  • ফায়ারফক্স ওএস কে প্রোমোট করা।
  • মজিলার মিশন সম্পর্কে অন্যদের অবগত করা।
  • ওয়েব সম্পর্কে শিক্ষার প্রসার ঘটানো।
  • কিভাবে কোডিং করতে হয়, অ্যাপস বানাতে হয়, অনলাইনে কিভাবে অসাধারণ জিনিস তৈরি করতে হয় তা অন্যদের শেখানো।
  • ওপেন ওয়েব এবং ইনোভেশন কে প্রোমোট করা।

মজিলা বলে থাকে:

We know we’re up against billion-dollar giants, but our Ambassadors are here tackling new challenges daily to fight for your privacy and for an open Web.

 আপনি যে জন্য স্টুডেন্ট অ্যাম্বাসেডর হবেন:

আপনি আপনার অবসর সময়ের একটা অংশ এমন এক সংগঠন কে দিবেন, যারা প্রত্যক্ষ্য ভাবে আপনার জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

প্রকৃতপক্ষে আপনি আপনার এবং সমগ্র ইন্টারনেট কমিউনিটির জন্য কাজ করবেন, যা এক দিক থেকে সামাজিক দায়িত্বের অন্তর্ভুক্ত।

তাছাড়া আপনি আরো অনেক কিছু উপভোগ করার সুযোগ পাবেন। যেমন:

  • আপনার ক্যাম্পাসে নেতৃত্বের গুণাবলী অর্জন।
  • মজিলা কমিউনিটির সাথে বিভিন্ন বড় ইভেন্ট আয়োজনের সুযোগ।
  • বিভিন্ন ধরণের কন্টেন্ট তৈরির সুযোগ যা আপনি ভালবাসেন। যেমন: অ্যাপস, ওয়েব পেজ, ভিডিও, গ্রাফিক্স ইত্যাদি।
  • অসাধারণ কিছু উপহার পেতে পারেন। যাকে সাধারণ ভাবে সোয়াগ বলা হয়।
  • প্রযুক্তি, ব্যাবসা এবং বিপণনে অভিজ্ঞতা অর্জন।
  • পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তের অ্যাম্বাসাডরদের সাথে যোগাযোগের সুযোগ। আপনি এখানে একা নন 🙂
  • মজিলা ইন্টার্নশিপের জন্য বিবেচিত হওয়ার সুযোগ।
  • নতুন কিছু করার মাধ্যমে পৃথিবী বদলে দেবার সুযোগ!

ফায়ারফক্স স্টুডেন্ট অ্যাম্বাসেডর হতে গেলে আপনাকে:

  • কমপক্ষে ১৮ বছর বয়স্ক হতে হবে।
  • বর্তমানে শিক্ষার্থী, শিক্ষক কিংবা প্রশাসক হিসেবে কোন কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে যুক্ত থাকতে হবে।

সাধারণ দুটি প্রশ্ন:

  • এই প্রোগ্রামে কি নির্দিষ্ট কোন সময়সীমা আছে, যা আমাকে দিতেই হবে?

– না। কোন সময়সীমা নেই। আপনার যতটুকু খুশি ঠিক ততটুকু সময়ই দিতে পারবেন।

  • এখান থেকে কোন টাকা পাবার সম্ভাবনা আছে কি?

– না, নেই। এই প্রোগ্রাম সম্পূর্ণ স্বেচ্ছাশ্রম নির্ভর।

এতক্ষণ যে বিষয় গুলো লিখলাম, এর পূর্বে এ বিষয়েই ইংরেজিতে একটা প্রেজেন্টেশন বানিয়েছিলাম। ইচ্ছা হলে এই লিংকে দেখতে পারেন।

তো! আর দেরি কেন? আজই যুক্ত হোন ফায়ারফক্স স্টুডেন্ট অ্যাম্বাসেডর হিসেবে!

যেভাবে এই প্রোগ্রামে যুক্ত হবেন:

  1. প্রথমে এই লিংকে যান। এখানে গেলে একটা ফর্ম পাবেন। নাম, ইমেইল সহ যাবতীয় তথ্য দিয়ে Sign me up! বাটনে ক্লিক করুন। এই ফরমে School নামের একটা ঘর আছে। ঘাবড়াবেন না। এখানে আপনার কলেজ বা ইউনিভার্সিটির তথ্য দিতে হবে।
  2. আপনার ইমেইলে একটা কনফার্মেশন ইমেইল আসবে। আপনাকে FSA Beginner’s Guide এবং FSA wiki পড়তে বলা হবে।
  3. মনযোগ দিয়ে পড়ে ফেলুন। বিস্তারিত অনেক কিছু জানতে পারবেন। এরপর কী করণীয় নিজেই বুঝতে পারবেন। তবুও লিখছি।
  4. মজিলা বাংলাদেশের মেইলিং লিস্টে যোগ দিন। ফেসবুকে মজিলা বাংলাদেশ ফায়ারফক্স স্টুডেন্ট অ্যাম্বাসেডর, বাংলাদেশ গ্রুপ দুটিতে যোগ দিন।
  5. এখন আপনার কাজ হল আপনার প্রতিষ্ঠানের ফায়ারফক্স ক্লাবে যোগ দেয়া। এখান থেকে আপনার প্রতিষ্ঠানের ফায়ারফক্স ক্লাব খুঁজে বের করে, ক্লাবের সাথে সোশাল মিডিয়ায়(মূলত ফেসবুক গ্রুপ) যোগ দিন। প্রতিষ্ঠানে পূর্বে ফায়ারফক্স ক্লাব না থাকলে, এই উইকি ফলো করে ক্লাব খুলে ফেলতে পারেন।
  6. ফেসবুকে মজিলা বাংলাদেশ গ্রুপের ফায়ারফক্স স্টুডেন্ট অ্যাম্বাসেডর লিস্টে নিজের নামটি IRC নিকসহ যোগ করে দিন। IRC সম্পর্কে পূর্বে না জেনে থাকলে এখানে দেখুন। irc.mozilla.org সার্ভারের #Bangladesh রুমে মজিলা বাংলাদেশের মিটিং হয়ে থাকে। মিটিং সম্পর্কে ইমেইলে কিংবা গ্রুপে জানতে পারবেন।

অভিনন্দন! আপনি সমস্ত কাজ সফল ভাবে শেষ করেছেন। আপনি এখন থেকে একজন গর্বিত ফায়ারফক্স স্টুডেন্ট অ্যাম্বাসেডর(FSA)।

কোন প্রশ্ন থাকলে মজিলা বাংলাদেশ বা ফায়ারফক্স স্টুডেন্ট অ্যাম্বাসেডর, বাংলাদেশ গ্রুপে মন খুলে করে ফেলুন। মনে রাখবেন, আপনি কখনোই একা নন 🙂 ।

FSA দের কাজ এই পোস্টে পূর্বেই বলা হয়েছে। আপনার কাজও তাই। নিয়মিত ক্লাবের মিটিংয়ে উপস্থিত থেকে ক্লাবের কর্মপরিকল্পনা ঠিক করুন। অন্যান্য ক্লাব গুলো কি করছে খেয়াল করুন। এতে আপনার ক্লাবের কর্মপরিকল্পনা ঠিক করতে সুবিধা হবে। সব সময় মজিলা বাংলাদেশ কমিউনিটির সাথে যুক্ত থাকুন। চোখ রাখুন মজিলা বাংলাদেশ ব্লগে। বিভিন্ন ভাবে কন্ট্রিবিউট করা শুরু করে দিন মজিলায়। দেখুন, আপনি মজিলার জন্য কি কি করতে পারেন!

ভাল থাকুন, আর মজিলার সাথেই থাকুন 🙂

Spin up your first SSD cloud server on DigitalOcean with $10 free credit!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *